আলো ছড়াচ্ছে আশার আলো পাঠশালা
April 22, 2015
এতিম শিশুদের জন্য অবারিত আলো
April 22, 2015
Show all

চা বাগানে মোহনের মোহনীয় অবয়ব

মোহন রবিদাসের গল্পটা বিরুদ্ধ স্রোতের বিপরীতে মরণপণ লড়াই করে স্বজাতির অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার উপাখ্যান। যার পরতে পরতে আছে সংখ্যাগুরুর বক্রদৃষ্টি ও দলিত হয়ে জন্মানোর অপবাদ সম্বল করে একটি নতুন যুগের সৃষ্টি করার সাহস। মৌলভিবাজারের চা বাগানের শ্রমিক পরিবারে জন্মানো মোহন রবিদাস চা জনগোষ্ঠীর মধ্যে প্রথম হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের পাশাপাশি তিনি নিজ জনগোষ্ঠীর জন্য গড়ে তুলেছেন “জাগরণ ইয়ুথ ফোরাম” যা কাজ করছে চা শ্রমিক ও তাঁদের সন্তানদের শিক্ষাসহ মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য।

23.-Mohon-Robi-Das2একটা সময় ছিল যখন চা শ্রমিক রবিদাসদের জাত প্রথার দোহাই দিয়ে স্কুলে যেতে দেওয়া হতো না। চা বাগানে সামান্য মজুরি সম্বল করে দিনমজুরের জীবন যাপন করে চা জনগোষ্ঠীর মানুষরা শেষমেশ যা পেতো তার নাম দাসত্ব। এই শৃঙ্খল থেকে এখনো পুরোপুরি মুক্ত হতে পারেননি তারা। চা বাগানের মালিক শ্রেণীর অবর্ণনীয় শ্রমের জোয়াল কাঁধে নিয়ে এখনো কলুর বলদের মতো পরিশ্রম করছেন সরলমনা মানুষগুলো। এঁদের ভেতরেই জন্মেছেন মোহন রবিদাস। জন্মেই ক্ষান্ত হননি। দেশের অন্যান্য মানুষের মতো শিক্ষার অধিকার আদায় করে নিয়েছেন। সারাদেশের চা বাগানগুলোতে ছড়িয়ে থাকা চা জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের জন্য গড়ে তুলেছেন “জাগরণ ইয়ুথ ফোরাম”। যার লক্ষ্য দারিদ্র্য ও অশিক্ষার দুর্বিসহ চক্রে আজীবন গোত্তা খেতে থাকা চা জনগোষ্ঠীকে শৃঙ্খল মুক্ত করা। সংগঠনটি চা জনগোষ্ঠীর মধ্যে কারিগরি শিক্ষা ও সামাজিক সচেতনতার বিস্তার ঘটিয়ে দেশের নাগরিক হিসেবে তাঁদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা।

23.-Mohon-Robi-Das“জাগরণ ইয়ুথ ফোরাম” এমন চা জনগোষ্ঠীর স্বপ্ন দেখে যেখানে মানবাধিকার, ভূমি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় ও নিজস্ব আত্মপরিচয় নিয়ে তারা মাথা উঁচু করে সমাজের অন্যান্য মানুষের মতো বাঁচতে পারবে। সে উদ্দেশ্যে তারা শিশুদের শিক্ষিত হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছেন। পঞ্চম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের মাঝে তাঁরা শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করছেন। ২৪০টি চা বাগানে নিরক্ষরতা দূর করার জন্য কাজ করে চলছেন। তরুণদের তথ্য প্রযুক্তি ও অন্যান্য কারিগরি শিক্ষার ব্যবস্থা করে বাইরের বিশ্বের জানালা খুলে দিয়েছেন তাঁরা। এছাড়াও চা জনগোষ্ঠীর মাঝে মানবিক শিক্ষা, তরুণ সম্মেলন, সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্যের সংরক্ষণের উদ্যোগের মাধ্যমে তাঁদের উন্নয়নের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মোহন ও তাঁর সংগঠনের সদস্যরা।

সরকার ঘোষিত “ভিশন ২০২১” লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে দেশের সকল জনগোষ্ঠীর সুষম উন্নয়ন প্রয়োজন। অবহেলিত চা জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে নিরলস কাজ করে মোহন রবিদাস ও তাঁর সংগঠন ““জাগরণ ইয়ুথ ফোরাম” সে অর্জনের পথেই দেশকে নিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর মতো অনেক আলোকিত মানুষই পারবে পাহাড় ও সমতলে সমতা ও উন্নয়নের সুবাতাস বয়ে তুলতে।

মোহন রবি দাস
বিএসএস ও এমএসএস
গ্রাম – শমশের নগর চা বাগান
পোস্ট- শমশের নগর
থানা – কমলগঞ্জ
মৌলভিবাজার