(880)-2-9111260

Blog

নওগাঁর নিশানে উড্ডীন প্রকৃতির জয়

আগামী প্রজন্মের জন্য রেখে যাওয়া পৃথিবীটা কল্পনা করুন। জানি বৃক্ষশূণ্য, রুক্ষ ও কারখানার কালো ধোঁয়াময় একটি অসুস্থ গ্রহের কথা ভেবে শিউরে উঠছেন আপনি। অদ্ভুত এক অমানিশার কথা ভাবছেন যা আদতে মানব জাতির অস্তিত্বের সংকট সৃষ্টি করবে। আশার কথা আগামী প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী রেখে যাওয়ার জন্য লড়াই করছেন স্বপ্নবান কিছু তরুণ। প্রকৃতির মৌল অবয়ব বজায় রাখার সংগ্রামে তাঁরা আঁটঘাট বেঁধে নেমেছেন। নওগাঁর তরুণ মহিদুর রহমান প্রতিষ্ঠিত সংগঠন ‘নিশান-নওগাঁ ইনিশিয়েটিভস ফর সোসাইটি হেরিটেজ এন্ড নেচার’ নিভৃতে কাজ করছে প্রকৃতি ও তার সন্তান বন্যপ্রাণিদের জন্য।

11.-Mohidur-Rahmanমহিদুর রহমান ছোটবেলা থেকে প্রেমে পড়েছিলেন পাখি ও গাছদের। বাড়ির পাশের শিমুল গাছের কোটরে ঝাঁক ধরে বাসা বাঁধা টিয়া পাখির দলের সবুজ সৌন্দর্যে তিনি বিস্মিত হতেন। কিন্তু পাশপাশি মানুষের নিষ্ঠুরতায় শিউরে উঠতেও সময় নেননি তিনি। বুঝতে পারেন লোভের কারণে মানুষ কতটা কদর্য হতে পারে। সেই থেকে প্রকৃতির জন্য, তার সৃষ্টিদের জন্য কিছু করার তাগিদ অনুভব করেন। সমমনা কয়েকজন তরুণকে নিয়ে গড়ে তোলেন “নেচার ক্লাব”। তাঁদের নিয়ে এলাকায় পাখি শিকারের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলেন। তাঁদের উদ্যোগে স্থানীয় স্কুলগুলোতে পাখি শিকার না করার শপথ নিতে থাকে শিক্ষার্থীরা। মহিদুররাও বিপুল উদ্যমে সহস্র গাছ লাগান স্কুল, রাস্তা ও পতিত জমিতে। ইতোমধ্যে তাঁদের রোপন করা গাছের সংখ্যা ছাড়িয়েছে কুড়ি হাজার। ২০১১ সালে “নেচার ক্লাব” আরো বড় পরিসরে আবির্ভূত হয় ‘নিশান-নওগাঁ ইনিশিয়েটিভস ফর সোসাইটি হেরিটেজ এন্ড নেচার’ নামে। পরিবেশ ও প্রাণিকুলের পাশাপাশি তাঁরা কাজের ক্ষেত্র বিস্তৃত করেন ঐতিহ্যের সংরক্ষণেও। ২০১২ সালে বন্যপ্রাণি (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন পাসের সাথে সাথে গঠিত হয় সরকারি দপ্তর  বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ রাজশাহীর সৃষ্টি হয়। নিশান ও এই দপ্তরের উদ্যোগে পরিবেশ সংক্রান্ত কর্মযজ্ঞ বিপুল উদ্যমে চলতে থাকে। উত্তরবাংলার বিভিন্ন স্থানে পাখিদের কলোনি চিহ্নিতকরণ ও সংরক্ষণে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে নিশান। এছাড়াও পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর পলিথিন পরিহারে সামাজিক আন্দোলন, বিভিন্ন জাতীয় দিবসে কর্মকাণ্ড ও পরিবেশবান্ধব কৃষি পদ্ধতি অনুসরণে পরামর্শ ও উদ্দীপনা সৃষ্টি করে নিশান একটি ব্যাপক সামাজিক আন্দোলনের জন্ম দিয়েছে। পরিবেশ ও বন্যপ্রাণি সংরক্ষণে তাঁদের কাজের দেখাদেখি অন্যান্য তরুণরাও এগিয়ে আসছেন এই মহান প্রচেষ্টায় শামিল হতে।

নিশানের কাজের পরিসর বিবেচনায় বলা যায় সাহসী এ সংগঠনটি প্রকৃতি ও পাখিসহ বন্যপ্রাণিদের বন্ধু হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। তাঁদের কাজের ফল ভোগ করবে আমাদের আগামী প্রজন্ম। বাসযোগ্য একটি পৃথিবী রেখে যাওয়ায় কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করবে পূর্বসুরীদের।

মো. মহিদুর রহমান
এমএসসি প্রাণীবিদ্যা (প্রথম শ্রেণী)
গ্রাম: দক্ষিণ মৈনম
পোস্ট: মৈনম (৬৫০০)
উপজেলা: মান্দা, জেলা: নওগা