(880)-2-9111260

Blog

সমাজ বদলে সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন

সমাজ বদলের জন্য প্রয়োজন তৃণমূল পর্যায়ের উদ্যোগ। তেমনি কিছু প্রয়াস ধীরে ধীরে দিনবদল ঘটাচ্ছে দেশজুড়ে। রংপুরের পীরগাছার “সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন” তেমনি নিভৃতে থেকে কাজ করে যাচ্ছে দেশ ও মানুষের জন্য। স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে অন্যদের সামনে স্থাপন করছে অনন্য দৃষ্টান্ত।

বাংলাদেশের তরুণদের অদম্য স্পৃহা বিস্ময় জাগায় পৃথিবীবাসীর মনে। হিমালয় থেকে সুন্দরবন পর্যন্ত তরুণদের যে উচ্ছ্বাস তা দেশ ছাপিয়ে বিখ্যাত পৃথিবীজোড়া। তাঁদের সবাই যে প্রচারের আলোয় আসেন তা না। তেমনি নিভৃতচারী কর্মযজ্ঞে বলীয়ান সংগঠন “সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন”। সংগঠনটি প্রতিষ্ঠার পর অনেকগুলো কল্যাণকর কাজে যুক্ত হয়ে এলাকার মানুষের কাছে পরিচিত হয়ে উঠেছেন। স্কুলগামী গরীব শিক্ষার্থীদের মাঝে তাঁরা প্রথমে বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণের কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে নিজেদের পকেট থেকে অর্থ দিয়ে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার কাজে সহায়তা করেন। ৫০ জন সদস্যের সংগঠনটি সদা সচেষ্ট যেন অর্থের অভাবে কোন শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ না হয়ে যায়। এলাকার স্কুল-কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে নিয়মিত বৃক্ষরোপন কর্মসূচী চালিয়ে আসছেন তাঁরা। গাছ লাগানোর পাশাপাশি এর সদস্যরা গাছের পরিচর্যাও করেন। ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে লড়াইয়েও তৎপর “সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন”। গ্রামের মুমূর্ষু রোগীদের জন্য রক্তদানের ব্যবস্থাও করেন সংগঠনটির সদস্যরা। এছাড়াও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, বয়স্কদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা ইত্যাদি উদ্যোগ নিয়ে তাঁরা মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। “সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন” গ্রামের রাস্তাঘাট স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে মেরামত করে থাকেন। নিজেদের সমস্যা নিজেরাই সমাধান করার এই অসামান্য চেষ্টা গ্রামের সাধারণ মানুষের মধ্যেও বিপুল প্রশংসা কুড়িয়েছে। এভাবে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রচেষ্টার মাধ্যমে সমাজের একজন হয়ে সামাজিক সমস্যাগুলো সমাধান করার এই প্রবৃত্তি নিঃসন্দেহে প্রেরণাদায়ী। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার পাশাপাশি তরুণদের এমন কাজের ফসল আদতে গোলায় উঠবে পুরো দেশের মানুষেরই। সংগঠনটির সদস্যরা জানান তাঁদের কর্মকান্ড আরো ব্যাপক পরিসরে বিস্তৃত করার পরিকল্পনা রয়েছে। কিন্তু অর্থের অপর্যাপ্ততা বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে বারবার। খানিকটা পৃষ্ঠপোষকতা তাঁদের ডানা মেলা স্বপ্নগুলোতে নতুন হাওয়া যোগ করতে পারে। সদস্যরা জানালেন একটা পাঠাগার স্থাপনের মাধ্যমে গ্রামে জ্ঞানের দীপ জ্বালিয়ে তোলার অভিলাষের কথা। যা আলোকিত করবে আগামী প্রজন্মকে।

“সামাজিক উন্নয়ন ফাউন্ডেশন” নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছে রংপুরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে। দারিদ্র্যের সাথে লড়তে থাকা মানুষগুলোর পাশে দাঁড়িয়েছে প্রগাঢ় মমতায়। খানিকটা পৃষ্ঠপোষকতা আরো বিস্তৃত করতে পারে তাঁদের কাজের পরিসরকে।