(880)-2-9111260

Blog

সূর্যের মতোই কিরণ ছড়াচ্ছে সান

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সান, শরতের সূর্যের মতোই অকাতরে কাজ করে যাচ্ছে মানুষের জন্য। ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর থানার “সোশ্যাল ইউনিটি ফর নার্সিং” বা সান নামের সংগঠনটি স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে পরম বন্ধুর মতো। একাগ্র চেষ্টায় সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নানা কাজের মাধ্যমে সংগঠনটির সদস্যরা সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করছেন। তাঁদের কাজের ব্যাপকতা ইতোমধ্যে প্রশংসিত হয়েছে সচেতন মহলে। 

12.-H-M-Khairul-Basar
সানের কাজের ফিরিস্তি দিতে গেলে অনেকটা পরিসর নিয়ে লিখতে হবে। এক কথায় তাঁদের কর্মযজ্ঞ কেবল ব্যাপকই নয় বরং সামাজিক সাফল্যের ক্ষেত্রেও কার্যকরী। সান ২০০৬ সাল থেকে ইতোমধ্যে অন্তত দুই হাজার বৃক্ষ রোপন করে শ্যামল গৌরীপুর সৃষ্টির কাজে নেতৃত্ব দিয়েছে। শ্রমজীবী শিশু যারা স্কুল থেকে ঝরে পড়েছে তাঁদের জন্য বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন তাঁরা। সেখানে শিশুদের পাশাপাশি বয়স্কদেরও শিক্ষার আলো ছুঁয়ে দিয়ে আলোকিত করার কাজ চলছে। প্রান্তিক এলাকায় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দিয়ে তাঁরা তরুণদের মধ্যে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করার প্রয়াস নিয়েছেন। “ভিশন ২০২১” গড়ার সাথে সংগতিপূর্ণ এ উদ্যোগের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছেন দরিদ্র পরিবারের অন্তত ২১০ জন তরুণ। সান এলাকার বেকার তরুণদের মাঝে উদ্যমী মনোভাব সৃষ্টির লক্ষ্যে সমবায় পদ্ধতিতে কৃষি ও মৎস্য খামার স্থাপন করেছে। আলোকিত দেশ গড়ার জন্য বই পড়ার চর্চার বিকল্প নেই। বইয়ের আলোতে আলোকিত আগামী প্রজন্ম পরবর্তীতে দেশগড়ায় নেতৃত্ব দেবে। সে লক্ষ্যে সান “গ্রাম পাঠাগার” আন্দোলনের সূচনা করেছে। ইতোমধ্যে দুইটি গ্রামে পাঠাগার স্থাপন ও সাড়ে ছয় হাজার টাকার বই কিনে সে আন্দোলন বেগবান করার প্রচেষ্টা শুরু হয়েছে। সানের কিছু কার্যক্রম একেবারেই ব্যতিক্রম ও জনকল্যাণমুখী। তাঁদের উদ্যোগে গ্রামের দরিদ্র ও অসহায় মানুষদের বিনামূল্যে আইনি সহায়তা দেয়া হচ্ছে। আইনের আশ্রয় লাভের প্রক্রিয়া সম্পর্কে অজ্ঞতার কারণে গ্রামের মানুষ প্রায়ই হয়রানির শিকার হন। তাঁদের পাশে এসে দাঁড়াতেই এই প্রচেষ্টা নিয়েছে সান। সংগঠনটি সংশ্লিষ্ট তরুণরা জানালেন আইনি সহায়তা লাভকারী মানুষের সংখ্যা ৫০০ জনেরও বেশী। এছাড়াও দেশের সাংস্কৃতিক শেকড়ের প্রতিও যত্নশীল সান। “আমাদের ঐতিহ্য, আমাদের অহংকার” স্লোগানকে সামনে রেখে পালিত হয় “যাত্রা উৎসব ২০১৪”। আকাশ সংস্কৃতির যুগে লুপ্তপ্রায় দেশজ ঐতিহ্যের মাঝে প্রাণ সঞ্চার করার এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকলে আখেরে সুফল ভোগ করবে বাঙালি জাতি।

বহুমূখী সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কাজের মাধ্যমে “সোশ্যাল ইউনিটি ফর নার্সিং” (সান) গৌরীপুরে সমাজ পরিবর্তনে নেতৃত্ব দিচ্ছে। তাঁদের কাজের বৈচিত্র্যের সাথে সাথে ভারী হচ্ছে সাফল্যের পাল্লা। গৌরীপুরের আকাশ ছাপিয়ে সানও কিরণ বিলিয়ে যাচ্ছে পুরো বাংলাদেশে।

এইচ এম খাইরুল বাসার
বিএ (সম্মান), এমএ (ইতিহাস)
পো:+উপজেলা: গৌরীপুর
জেলা: ময়মনসিংহ