শুকতারা জ্বলে উঠুক প্রতিটি নারীমনে
April 30, 2015
“শিশুরাই আগামীর যুব’কন্ঠস্বর”
April 30, 2015
Show all

সবুজ প্রাণে সবুজ পৃথিবী

পরিবেশের সাথে প্রাণের সম্পর্ক আত্মিক। বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের মতো ঘটমান দূর্যোগকে সামনে রেখে সময় এসেছে সে সম্পর্কের শেকড়ে ফেরত যাওয়ার। পরিবেশ ও প্রকৃতির জন্য কাজ করে আগামী প্রজন্মকে একটি সুন্দর পৃথিবী উপহার দেয়ার। সে লক্ষ্য পূরণে কাজ করছে “ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অব এনভায়রনমেন্ট” নামের একটি সংগঠন। তারুণ্যের সংগঠনটি কাজ করছে একটি সবুজ পৃথিবীর জন্য। অনাগত মানব সন্তানের জন্য বাসযোগ্য একটি পৃথিবীর জন্য। 

২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় “ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অব এনভায়রনমেন্ট”। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বন ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের জনাকয়েক ছাত্র মিলে গড়ে তোলেন সংগঠনটি। তাঁদের লক্ষ্য ছিলো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও আশেপাশে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও উন্নয়নে কাজ করা। বৈশ্বিক উষ্ণতার আসন্ন প্রতিকূলতাকে সামনে রেখে তরুণ সমাজের মধ্যে এ সংক্রান্ত সচেতনতা গড়ে তোলা। সেজন্য আঁটঘাট বেঁধে মাঠে নামতেই অভূতপূর্ণ সাড়া পান তাঁরা। মূলত ব্যক্তি উদ্যোক্তার অর্থায়নে পরিচালিত সংগঠনটিতে যুক্ত হন সমমনা অনেক তরুণ। পরিবেশ ও প্রকৃতিকে ভালোবেসে কাজ করে যান সংগঠনের প্রতীতির সাথে কাঁধ মিলিয়ে। “ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অব এনভায়রনমেন্ট” এর অনেকগুলো কাজের মধ্যে রয়েছে বর্জ্যের যথাযথ ব্যবস্থাপনা, জলাধারের সংরক্ষণ, বৃক্ষরোপন, জ্বালানী সংরক্ষণ, ব্যবহৃত পণ্যের পুনঃব্যবহার ইত্যাদি। তাঁরা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বন ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে পরিবেশ দূষণ ও ক্লাইমেট চেইঞ্জ সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রেরণামূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। “বিশ্ব পরিবেশ দিবস” ২০১৪ তে তাঁদের সংগঠনের উদ্যোগে “আওয়াজ তুলুন সমুদ্রে পৃষ্ঠের উচ্চতা নয়” স্লোগান সামনে রেখে বিপুল উদ্দীপনার মাধ্যমে র্যালীর আয়োজন করেন। তাঁদের অসামান্য একটি কাজ হলো “গ্রিন স্কুলিং”। শিশুদের মধ্যে পরিবেশ সচেতনতা সৃষ্টির কাজ তাঁরা করে থাকেন চিত্রাঙ্কনসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে। পাশপাশি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের জন্যও কাজ করে থাকেন তাঁরা। পরিবেশের দূষণরোধে “ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অব এনভায়রনমেন্ট” এর পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে ডাস্টবিন তৈরি করে দেয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি শীতার্তদের জন্য শীতবস্ত্র সংগ্রহ ও বিতরণের কাজ করেছেন। পরিবেশের সাথে সাথে প্রাণের জন্য কাজ করেও তাঁরা দায়বদ্ধতার পরিচয় দিয়েছেন। সবুজের সৌরভ ছড়িয়েছেন প্রাণে।

পরিবেশ দূষণ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষার প্রয়াস নিয়ে গড়ে ওঠা সংগঠন “ইয়ুথ ভলান্টিয়ার অব এনভায়রনমেন্ট” ইতোমধ্যে বিস্তৃত হয়ে চট্টগ্রামের বাইরেও। নরসিংদী ও কুমিল্লায় ছড়িয়েছে সংগঠনটির কর্মকান্ড। এভাবে দেশব্যাপী সবুজ বাঁচানোর উদ্যোগ নিলে একটি সুন্দর পৃথিবীর স্বপ্ন আমরা দেখতেই পারি।