(880)-2-9111260

Blog

কারিগরি শিক্ষার প্রসারে কুষ্টিয়ার “গুরুকুল”; একটি কারিগরি শিক্ষা বিস্তার ও সামাজিক উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান

বাংলাদেশে কারিগরি শিক্ষার প্রসারে তরুণ তরুণীদের কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত ও দক্ষ করে গড়ে তুলতে গুরুকুল ও এর সহায়ক প্রতিষ্ঠান সমূহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।গুরুকুল ২০০৭ সাল থেকে তথ্য প্রযুক্তিবিদ সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর এর তত্ত্বাবধায়নে সমাজে কারিগরি শিক্ষা প্রসারে ও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের মাধ্যমে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ি সহ সারা দেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

গুরুকুল এর বিভিন্ন বিভাগে বর্তমানে ২০০০ শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছে। শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্বব্যংক পরিচালিত ষ্টেপ প্রজেক্টের অধীনে প্রতি মাসে সরকারি বৃত্তি পায়। শিক্ষার্থীদের কখনো প্রাইভেট পড়তে হয় না। ২৫ জন শিক্ষার্থীর জন্য রয়েছে ১ জন করে গাইড শিক্ষক। গুরুকুল শিক্ষার্থীরা প্রতিবারই কোন না কোন টেকনোলজি থেকে দেশ সেরা রেজাল্ট করে। গুরুকুল এর সাবেক শিক্ষার্থীরা দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন সেক্টরে কর্মরত।

লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সামাজিক ভাবে গড়ে তুলতে এখানে রয়েছে, গুরুকুল কালচারাল ক্লাব, স্পোর্টস ক্লাব, রোভার স্কাউট গ্রূপ,গার্ল-ইন রোভার,ডিবেটিং ক্লাব, যুব রেড ক্রিসেন্ট, ম্যাথ ক্লাব, ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব,কম্পিউটার ক্লাব,হেলথ ক্লাব, ব্লাড ব্যাংক, গুরুকুল এর সাবেক শিক্ষার্থীদের নিয়ে এলামনাই ক্লাব ও জব প্লেসমেন্ট সেল।

গুরুকুল এর কার্যক্রমের মধ্যে অন্যতম হলো –

কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানঃ
২০০৭ সাল থেকে গুরুকুল এর ৫টি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১৪টি ইঞ্জিনিয়ারিং ও মেডিক্যাল টেকনোলজির মাধ্যমে কুষ্টিয়া ও রাজবাড়ি অঞ্চলের তরুণ তরুণীদের কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে সমাজে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনশক্তি তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে। এসকল প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতি বছরে প্রায় ১০০০ এর অধিক তরুণ তরুণী বিভিন্ন দীর্ঘ ও স্বল্প মেয়াদী ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের মাধ্যমে দেশের দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হচ্ছে।

শেখ হাসিনা হেলথ ক্যাম্প:
২০১৬ সাল থেকে কুষ্টিয়া কুমারখালী-খোকসা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ফ্রি স্বাস্থ্য ক্যাম্পের আয়োজন করে আসছে এবং এভাবে প্রায় ৪১৭১জন মানুষ কে স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেছে।

শেখ হাসিনা কমিউনিটি সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রঃ
২০১৮ সালের শুরু থেকে কুষ্টিয়া ও এর আশেপাশের অঞ্চলের মানুষকে ফ্রি সেলাই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রায় ৪০০ জন নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে এবং আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করেছে।

পেশা পরামর্শ সভাঃ
২০১০ সাল থেকে গুরুকুল ও এর অঙ্গসংগঠন কুষ্টিয়ার বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ করে স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের সঠিক দিকনির্দেশনা ও ভবিষ্যৎ পেশা বিষয়ক ১০৫টি সভার আয়োজন করেছে এবং প্রায় ১৫০০০+তরুণ তরুণীকে এ সভার আওতায় আনতে ও প্রশিক্ষণ প্রদানে সক্ষম হয়েছে।

ফ্রি কম্পিউটার প্রশিক্ষনঃ
২০১৬ সাল থেকে ২টি কম্পিউটার ল্যাব নিয়ে ফ্রি কম্পিউটার প্রশিক্ষণের যাত্রা শুরু হয় এবং বর্তমান সময় পর্যন্ত প্রায় ৩৩২১ জন প্রশিক্ষিত জনশক্তি তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। উক্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে এবং বর্তমানে ৩৭০জন প্রশিক্ষনার্থী ফ্রি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ গ্রহন করছে।

ফ্রি দর্জি প্রশিক্ষনঃ
২০১৭ সাল থেকে কুষ্টিয়া অঞ্চলের আগ্রহী মা বোনদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে ফ্রি দর্জি প্রশিক্ষণের কার্যক্রম। উক্ত ফ্রি দর্জি প্রশিক্ষণ এর মাধ্যমে ৫৫৭১জন নারীকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত করতে পেরেছে।

ফ্রি বিউটিফিকেশন প্রশিক্ষনঃ
বর্তমান আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে আমার এলাকার বিশেষ করে তরুণীদের দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করতে আমরা ফ্রি বিউটিফিকেশন কোর্সের মাধ্যমে ১৫০ জন তরুণীকে উক্ত প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করতে সক্ষম হয়েছি।

নারীদের বিশেষ পরামর্শ সভাঃ
বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর অর্ধেক হচ্ছে নারী আর সেই নারীদের স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতন করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে গুরুকুল বিশেষ পরামর্শ সভার আয়োজন করে আসছে এবং প্রায় ৭০০০+ এর অধিক নারীকে এ সেবা প্রদানে সক্ষম হয়েছে।

শেখ রাসেল পাঠচক্রঃ
তারুণ্যের বুদ্ধিবৃত্তিক সংযোগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৮সাল থেকে ৮ জন সদস্য নিয়ে এই কার্যক্রমের যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে সদস্য সংখ্যা প্রায় ২০০অধিক।

গুরুকুল প্রায় ৬০০০০ মানুষকে বিভিন্ন প্রশিক্ষন দিয়েছে এবং প্রায় ২০০০০ এর অধিক তরুন তরুণীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে। কারিগরি শিক্ষার প্রসারে গুরুকুলের অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৮ সালে তারা অর্জন করেছে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড। একটি সুশিক্ষিত, দক্ষ, কর্মঠ, রুচিশীল ও মানবিক প্রজন্ম গড়ে তোলাই গুরুকুল এর জয় বাংলা।